আপনি কি আপনার দাঁতে ও মাড়ির যত্ন নিচ্ছেন ঠিকমত ?

কথায় আছে দাত থাকতে দাতের মর্যাদা বোঝেনা। কথাটা আসলেই খুব গুরুত্বপূর্ন কেননা যার দাত নেই সে ই বোঝে দাত না থাকার কি কষ্ট। বয়স বাড়ার সাথে সাথে আমাদের দাতের কার্যক্ষমতাও কমে যায়। এই জন্য নিয়মিত দাতের যত্ন নেয়া অপরিহার্য কর্তব্য। আসুন যেনে নেই কিভাবে আমরা আমাদের দাতের যত্ন নিতে পারি

তাই সকালে ঘুম থেকে উঠে ও রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে দাঁত ব্রাশ করতে হবে।

দাঁত পরিষ্কার রাখা, ফ্লসিং ও কুলকুচি ছাড়াও কিছু খাবার রয়েছে যা দাঁত ও মাড়ি সুস্থ রাখে।

স্বাস্থ্যবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে দাঁত ও মাড়ি সুস্থ কীভাবে সুস্থ রাখবেন ও কী খাবার খাবেন যে সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ অনেক তথ্য জানা গেছে।

আসুন জেনে নেই যা খেলে দাঁত ও মাড়ি সুস্থ থাকবে-

১. দুধ ও দুগ্ধজাত খাবার দাঁত ও মাড়ি সুস্থ রাখে। এসব খাবার ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ। দুধে আছে ক্যাসেইন যা মুখগহ্বরের ক্ষরীয়ভাব নিষ্ক্রিয় করে। পনির দুধ-জাতীয় আরেকটি উন্নত খাবার যা মুখে লালার নিঃসরণ বাড়ায় এবং মুখ ও দাঁত পরিষ্কার রাখে। দইয়ের প্রোবায়োটিক মুখ ও দাঁতের স্বাস্থ্য সুরক্ষিত রাখে।

২. কপি-জাতীয় সবজি ও ফল খেতে হবে। এসব খাবার উচ্চ আঁশ সমৃদ্ধ তাই ভালো মতো চিবিয়ে খেতে হয়। এটা দাঁত ও মাড়ি সুস্থ রাখে। এসব খাবারে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ও খনিজ পাওয়া যায় যা সার্বিকভাবে শরীর ভালো রাখে ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

৩. কাঁচাপেঁয়াজ দাঁত ও মাড়ি ভালো রাখে। কাঁচাপেঁয়াজের গন্ধ অনেকেই পছন্দ করেন না। কাঁচাপেঁয়াজ নিয়মিত খেলে মুখের ব্যাক্টেরিয়ার সংক্রমণ দূর হয়। দাঁত এবং মাড়ি ভালো রাখতে সাহায্য করে।

৪. খাবার খাওয়ার পর প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে। খাবার কণা দাঁতের কোণায় আটকে থাকতে পারে ও ব্যাক্টেরিয়ায় সৃষ্টি হয়। পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করলে এসব আটকে থাকা খাবারের কণা দূর হয়ে যায় ও সংক্রমণের সৃষ্টি হয় না।

আমাদের লেখা আপনার ভাল লাগলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন আমরা চাই আপনারা একটি ভাল স্বাস্থ্যসেবা আমাদের কাছ থেকে লাভ করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *